লালমনিরহাটে দলীয় লোক না হলে ভাগ্যে ত্রাণ জুটছে না

প্রকাশিত: ১:১৫ অপরাহ্ণ, মার্চ ৩১, ২০২০

লালমনিরহাট প্রতিনিধি: করোনাভাইরাসের কাছে চরম অসহায় হয়ে পড়েছেন লালমনিরহাটে মধ্যবিত্ত ও দরিদ্র পরিবারের মানুষগুলো। কারও কাছে হাত পাততে না পেরে অনেকেই তিন বেলার পরিবতর্তে ২/১ বেলা আহার করতে শুরু করেছেন। জনপ্রতিনিধিরা যে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করছেন তা পৌঁছাচ্ছে মধ্যবিত্তদের হাতে। অভিযোগ উঠেছে মুখ চিনে চিনেই তারা বিতরণ করছেন খাদ্যসামগ্রী।

গত ২৬ মার্চ থেকে প্রায় সব কিছু বন্ধ হয়ে যায়। করোনার ভয়ে রিকশা, ইজিবাইক চলাচলও সীমিত হয়ে যায়, বন্ধ হয়ে গেছে চায়ের দোকানসহ অন্যান্য দোকানপাট।

এমন পরিস্থিতিতে সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী শুরু হয় ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ। লালমনিরহাট জেলা প্রশাসনের পাশাপাশি স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ শুরু করে। কিন্তু এ সামগ্রী বিতরণ করা হচ্ছে মুখ চিনে চিনে। যারা ওই জনপ্রতিনিধির কাছের লোক, তারাই নামের তালিকা দিয়ে নিয়ে যাচ্ছে খাদ্য সামগ্রী। অভিযোগ উঠেছে, দলীয় লোক না হলে তাদের ভাগ্য ত্রাণ জুটছে না।

তবে জেলার একাধিক জনপ্রতিনিধি জানান, তারা কোনো বাছ-বিচার না করেই খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করছেন। এখন সময় অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়ানোর। যারা মুখ চিনে বিতরণ করছেন, তারা ভালো করছেন না বলেও জানান ওই জনপ্রতিনিধিরা।

এক নেতা ইংলিশ বাংলা নিউজ কে বলেন দলীয় সিদ্ধান্ত হলো কোনো অসহায় মানুষ না খেয়ে থাকবে না। মুখ চিনে কাউকে ত্রাণ সামগ্রী দিতে নিষেধ করা হয়েছে। কিন্তু তারপরও অনেকেই এ ধরনের কাজ করছে বলে আমরা শুনেছি। তাদেরকে সতর্ক করা হচ্ছে।