গরিবের ত্রাণ নিয়ে দুর্নীতি, নিউজ করায় সাংবাদিককে ছিনতাইকারী বলে মারধর করলেন ছাত্রলীগ নেতা

প্রকাশিত: ১:২৬ পূর্বাহ্ণ, এপ্রিল ১, ২০২০
ছবি অনলাইন

ডেস্ক রিপোর্ট: ডাকসু ভিপি নুরুলহক নুরকে কিছুদিন আগে হত্যার হুমকি দেওয়া এই সেই ছাত্রলীগের নেতা। এবার সাংবাদিকের উপরে হামলা করলেন। করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় জেলেদের জন্য বরাদ্দের ত্রাণ নিয়ে দুর্নীতি, নিউজ করায় সাংবাদিককে ছিনতাইকারী বলে মারধর করেছেন ছাত্রলীগ নেতা।

তিনি জানিয়েছেন, “ইউনিয়নের জেলেদের ১ মণ করে চাল দেওয়ার কথা, কিন্তু চাল দেওয়া হচ্ছে মাত্র ১৪-১৫ কেজি করে। বিষয়টা আমি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে জানাই এবং চেয়ারম্যানকে জিগ্যেস করি কেন চাল কম দিচ্ছেন?

এজন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বসির গাজি এবিষয়ে চেয়ারম্যানকে জিগ্যেস করে।যেকারণে বোরহানউদ্দিন বড় মানিকা ইউনিয়ন পরিষদের (ভোলা) চেয়ারম্যান জসিমউদ্দিন হায়দারের ছেলে নাবিল হায়দার আজকে আমাকে ডেকে নেয় দেখা করার জন্য।

এরপর ভিপি নুরের হত্যার হুমকির ভিডিও দেখিয়ে বলে, আমি ভিপি নুরকে গুনিনা, আর তুমি তো কোথাকার সাংবাদিক। একথা বলতে বলতে আমাকে প্রচন্ড রকম মারধর করে এবং মোবাইল ছিনতাইকারী হিসেবে অপবাদ দেয়। নাবিল হায়দার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করে, কিছুদিন আগে সে ভিপি নুরকে প্রকাশ্যে হত্যার হুমকি ও তার সহযোদ্ধা শাকিলের উপর অতর্কিত হামলা করে।

ভোলা জেলার বোরহানউদ্দিন উপজেলার বড় মানিকা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান জেলেদের জন্য সরকারি বরাদ্দকৃত ১ মণ করে চাল না দিয়ে ১৪-১৫ কেজি করে চাল দিয়ে অাসছিলেন।বিষয়টি সম্পর্কে জানতে পেরে স্থানীয় সাংবাদিক সাগর চৌধুরি চেয়ারম্যান জসিমউদ্দিন হায়দারের কাছে কম চাল দেওয়ার কারণ জানতে চান।চেয়ারম্যান কোন সদুত্তর দিতে না পারায় সাংবাদিক সাগর চৌধুরী বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে জানান।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বসির গাজি এ বিষয়ে চেয়ারম্যানের কাছে জানতে চান। যেকারণে চেয়ারম্যান জসিমউদ্দিন হায়দারের ছেলে ঢাবি ছাত্রলীগ নেতা নাবিল হায়দার সাংবাদিক সাগর চৌধুরিকে কথা বলার জন্য ডেকে নিয়ে ছিনতাইকারী অপবাদ দিয়ে বেধড়ক মারধর করে।
ক্ষমতাসীন দলের এই দুর্বৃত্তদের হাতে মানুষ কি এভাবেই মারধর, লাঞ্ছনার শিকার হবে?