বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন বোর্ড

করোনায় বিপাকে বিআরডিবির ছয় হাজার কর্মকর্তা-কর্মচারী

প্রকাশিত: ১০:৩৮ অপরাহ্ণ, মে ৪, ২০২০

মোঃ নাজির হোসাইন, স্টাফ রিপোর্টার: বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন বোর্ডের (বিআরডিবি) আওতাধীন বিভিন্ন প্রকল্পের হাজার হাজার কর্মকর্তা-কর্মচারী করোনার প্রভাবে মানবেতর জীবন যাপন করছে। ক্ষুদ্র ঋণ কার্যক্রম বন্ধ হওয়ায় এসব প্রকল্পের কর্মচারীদের বেতন ভাতা বন্ধ প্রায় ২ মাস ধরে।

চলমান সংকটাবস্থায় সরকার এ কার্যক্রম বন্ধ রাখায় বিপদে পড়েছেন এসব মানুষ। বিতরণকৃত ঋণের আদায়কৃত সেবামূল্য (সার্ভিস চার্জ) আদায় করতে না পারলে এদের বেতন ভাতা হয়না বলে জানিয়েছেন ভুক্তভোগী কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

বিআরডিবি-এর আওতাধীন প্রায় ১৫ টি ক্ষুদ্র ঋণ কর্মসূচী চলমান। এসবের মধ্যে বেশিরভাগরই মেয়াদ শেষ। সুফলভোগীদের নিকট বিতরণকৃত ঋণের আদায়কৃত সেবামূল্যের একটি অংশ থেকে তাদের বেতনভাতা প্রদান করা হয়ে থাকে। কিন্ত চলমান মহামারিতে কার্যক্রম বন্ধ থাকায় বিপাকে পড়েছেন তারা।

জানা গেছে, সারাদেশে প্রায় ৬ হাজার কর্মকর্তা-কর্মচারী রয়েছেন। এসময়ে সরকার বেতনভাতা প্রদান না করলে পরিবার পরিজন নিয়ে পথে বসতে হবে বলে জানায় তারা।

এ বিষয়ে পল্লী দারিদ্র বিমোচন কর্মসূচির রৌমারী, কুড়িগ্রাম এর হিসাব সহকারী মোঃ মোজাম্মেল হক জানান, ‘আমরা দুই মাস ধরে বেতনভাতা পাচ্ছি না। এই বেতনের উপর আমাদের পরিবার, ছেলে-মেয়েদের লেখাপড়া চলে। এখন বেতনভাতা না পেলে রাস্তায় বসতে হবে।’ শুধু মাত্র মোজাম্মেল হক নন, হাজার হাজার কর্মকর্তা-কর্মচারীদের একই অবস্থা।

পদাবিক’র প্রকল্প পরিচালক সাংবাদিকদের জানান, সার্ভিস চার্জের একটি অংশ দিয়ে যেহেতু কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতনভাতা হয়, সেহেতু আদায় না থাকলে তা সম্ভব হবে না। তবে সরকার চাইলে চলমান সংকট মুহূর্তে তাদের বেতনভাতার সাপোর্ট দিতে পারবো।