লালমনিরহাটের দুই স্বাস্থ্যকর্মীসহ গাজীপুর, চাঁদপুর ও ঢাকা ফেরত আসাসহ আরো ৯ নারী-পুরুষ করোনায় আক্রান্ত

প্রকাশিত: ১:৪২ অপরাহ্ণ, মে ৮, ২০২০

মোঃ মাসুদ রানা রাশেদ, লালমনিরহাট: লালমনিরহাট জেলায় নতুন করে আরও ৯জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। রাজধানী ঢাকার শনিরআখড়া, গাজীপুরের সাইনবোর্ড ভুষিরমিল এলাকা ও চাঁদপুরের মতলব থেকে এসব করোনা পজেটিভ শনাক্ত রোগী নিজ নিজ বাড়ীতে আসে।
বৃহস্পতিবার ৭ মে রাত সাড়ে ৭টার দিকে আদিতমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ দেবনাথ ও হাতীবান্ধা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ডাঃ আব্দুল্লাহ আল মামুন এই তথ্য নিশ্চিত করেন।
আদিতমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ডাঃ দেবনাথ জানান, ৪৬বছর বয়সী একজন পুরুষ সহকারী নার্স, একই হাসপাতালের ৩০বছর বয়সী টিবি ল্যাপ্রোসি কন্ট্রোল এ্যাসিসট্যান্ট কভিড-১৯ পজেটিভ শনাক্ত হয়েছেন। এছাড়া এ উপজলার সাপ্টিবাড়ী পূর্বদৈলজোর এলাকায় গত ২৮ এপ্রিল প্রথম করোনা ভাইরাস পজেটিভ শনাক্ত রোগীর পরিবারের আরো ৫জন করোনা পজেটিভ শনাক্ত হয়েছে। এরমধ্যে ওই রোগীর ৪০বছর বয়সী পিতা, ১৯বছর বয়সী স্ত্রী, ১৪বছর বয়সী বোন, ১৭বছর বয়সী ভাই ও ৬৫বছর বয়সী দাদী রয়েছে। ওই পরিবারের সদস্যদের মধ্যে প্রথম করোনা পজেটিভ শনাক্ত যুবক, তার পিতা-মাতা রাজধানী ঢাকার গাজীপুরের সাইনবোর্ড ভুষিরমিল এলাকা থেকে গত ১৭ এপ্রিল ট্রাকে করে নিজ বাড়ীতে এসেছিল। অপর সদস্যরা তাদের থেকে সংক্রমিত হয়েছে। এছাড়াও একই উপজেলার পলাশী ইউনিয়নের টেপা পলাশী এলাকার ২৮বছর বয়সী যুবক করোনা পজেটিভ শনাক্ত হয়েছেন। তিনি ঢাকার শনিরআখড়া থেকে গত ২৯ এপ্রিল রাতে মাইক্রোবাসে নিজবাড়ীতে আসেন।
ওই যুবক জানান, তিনি গত ২৯ এপ্রিল একটি মাইক্রোবাসে ঢাকা থেকে বাড়ীতে আসেন। বরিশালের একবন্ধু তাকে রেখে চলে যায়। তারা ঢাকায় অনলাইনে মার্কেটিং এ কাজ করতেন।
সাপ্টীবাড়ীর করোনা পজেটিভ শনাক্ত পরিবারের একজন সদস্য মোবাইল কলে বলেন, গত ১৭ এপ্রিল, ২০২০খ্রিঃ তারিখে আমরা তিনজন ও লালমনিরহাটের সাঁকোয়া বাজার এলাকার আরো এক দম্পত্তিসহ ৫জনে একটি ট্রাকে করে বাড়ীতে এসেছি।
মোবাইল কলে ওই ব্যক্তি দাবী করে বলেন, আমরা সবাই সুস্থ্য আছি। আমাদের কোনো অসুবিধা নেই। আগে যেমন স্বাভাবিক ছিলাম, এখনো সেই রকমই আছি। কিন্তু শুনলাম আমরা না কী সবাই করোনা পজেটিভ শনাক্ত হয়েছি।
ওই ব্যক্তি জানান, তিনি সহ পরিবারের তিনজন সদস্য গাজীপুর সাইনবোর্ড ভূষির মিল এলাকার গার্মেন্ট ইষ্ট ওয়েষ্ট প্রাক ফ্যাশন লিমিটেড কোম্পানীতে চাকুরি করতেন। তারা গাজীপুর সাইনবোর্ড, ভূষিরমিল এালাকার “ইষ্ট ওয়েষ্ট প্রাক ফ্যাশন লিঃ” গার্মেন্টের কর্মী। তাদের নিকট ওই প্রতিষ্ঠানের আইডি কার্ড রয়েছে।
এদিকে হাতীবান্ধা উপজেলা হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ডাঃ আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, উপজেলার সিঙ্গিমারী ইউনিয়নের দক্ষিণ গোড্ডিমারী এলাকার ২৩বছর বয়সী ইটভাটার একজন নারী শ্রমিক করোনা পজেটিভ শনাক্ত হয়েছেন। গত ৩ মে ওই নারী শ্রমিক অন্যান্যদের সাথে চাঁদপুরের মতলব থেকে নিজ বাড়ীতে আসেন। তিনিই এ উপজেলার প্রথম করোনা পজেটিভ শনাক্ত রোগী।
লালমনিরহাট সিভিল সার্জন ডা. নির্মলেন্দু রায় বলেন, আদিতমারী উপজেলা থেকে মোট ৪২জনের নমুনা সংগ্রহ করে পাঠানো হয়েছিল। ৩৫জনের রিপোর্টে ওই হাসপাতালের দুই স্বাস্থ্যকর্মীসহ ৯জন করোনা পজেটিভ শনাক্ত এবং ২৬জনের নেগেটিভ ফলাফল এসেছে।
এছাড়াও একই সময়ে হাতীবান্ধা উপজেলা থেকে ৬৬জনের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছিল। এরমধ্যে ৪৬ জনের রিপোর্ট নেগেটিভ ও ১ জন নারী করোনা পজেটিভ শনাক্ত হয়েছেন।
করোনা পজেটিভ শনাক্ত বাড়ীগুলো লকডাউন ও সংক্রমিতদের আইসোলেশনে নেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে।
উল্লেখ্য, লালমনিরহাট সদর উপজেলায় ২জন, আদিতমারী উপজেলায় প্রথমে ১জন, পরে আরো ৮জন, পাটগ্রামে ১জন ও হাতীবান্ধায় ১জন সংক্রমিত হলেন। এর মধ্যে লালমনিরহাট সদর উপজেলার পিতা-পুত্র সুস্থ্য হয়ে গত ৩ মে বাড়ীতে ফিরেছেন। তথা পিতা কামরুল ইসলাম লালমনিরহাট জেলায় প্রথম করোনা সংক্রমিত ব্যক্তি ছিলেন। তিনি নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা স্টেডিয়ামপাড়া এলাকা থেকে ৮ এপ্রিল বাড়ীতে আসেন। ৯ তারিখ নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছিল। ১১ তারিখ করোনা পজেটিভ শনাক্ত হন তিনি।
লেখক: সাংবাদিক ও সম্পাদক, সাপ্তাহিক আলোর মনি, লালমনিরহাট। মোবা: ০১৭৩৫৪৩৮৯৯৯