পাটগ্রামের করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ব্যক্তি সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরলেন

প্রকাশিত: ৮:২৫ পূর্বাহ্ণ, মে ১৬, ২০২০

মোঃ মাসুদ রানা রাশেদ, লালমনিরহাট: লালমনিরহাট জেলার পাটগ্রাম উপজেলার প্রথম করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ব্যক্তি শাহীন আলম (৩৮) সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। শুক্রবার ১৫ মে সন্ধ্যা ৬টায় পাটগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে তাঁকে ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে।
ওই ব্যক্তির বাড়ি পাটগ্রাম উপজেলার পাটগ্রাম ইউনিয়নের মেছিরপাড় এলাকায়। সে নারায়ণগঞ্জে একটি আইসক্রিম কোম্পানীতে কাজ করতেন। তিনি পাটগ্রাম উপজেলায় প্রথম করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হন।
জানা গেছে, ওই ব্যক্তি গত ১ মে নারায়ণগঞ্জ থেকে লালমনিরহাট জেলার পাটগ্রাম উপজেলায় আসেন। তাঁর শরীরে হালকা জ্বর ও সর্দি ছিল। নারায়ণগঞ্জ থেকে এসেছেন জানতে পেরে ২ মে পাটগ্রাম উপজেলা প্রশাসন ও পাটগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সেখানে পাটগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্যকর্মীদের পাঠান নমুনা সংগ্রহ করার জন্য। তিনি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত কিনা তা পরীক্ষা করতে পাটগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্যকর্মীরা নমুনা সংগ্রহ করেন। সেই দিনে নমুনা পরীক্ষা করার জন্য রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠান।
গত সোমবার ৪ মে ওই ব্যক্তির করোনা ভাইরাস পরীক্ষার ফলাফল লালমনিরহাট জেলা সিভিল সার্জন অফিসে পাঠান। এতে ওই ব্যক্তির করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয় এবং হোম আইসোলেশনে রাখা হয়। পরবর্তীতে ৬ মে তাঁকে পাটগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি করে চিকিৎসা দেওয়া হয়। এরপর গত ১০ মে এবং ১১ মে তাঁর দুটি নমুনা পুনরায় পরীক্ষার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেই দুটি নমুনা নেগেটিভ আসায় তাকে করোনা ভাইরাস মুক্ত ঘোষণা করা হয়।
শুক্রবার ১৫ মে সন্ধ্যায় পাটগ্রাম উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে তাঁকে ছাড়পত্র প্রদান করা হয়। এসময় তাকে উপহার হিসেবে মৌসুমী ফল, ভিটামিন সি সমৃদ্ধ খাদ্যসামগ্রী এবং কমলা ও মাল্টা গাছ দেওয়া হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন পাটগ্রাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মশিউর রহমান, পাটগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ অরুপ পাল, পাটগ্রাম থানার অফিসার ইনচার্জ সুমন কুমার মহন্ত, পাটগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগের চিকিৎসক, নার্স ও কর্মচারীরা উপস্থিত।
এ বিষয়ে পাটগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ অরুপ পাল সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, তাঁর পুনরায় পর পর দুটি নমুনা সংগ্রহ করে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। এতে সেই নমুনার ফলাফল নেগেটিভ আসায় তাকে করোনামুক্ত ঘোষণা করা হয়।
পাটগ্রাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মশিউর রহমান জানান, পাটগ্রাম উপজেলায় প্রথম করোনা আক্রান্ত ব্যক্তি সুস্থ হয়ে বাড়ি গেছেন। এ সময় তাঁকে উপহার হিসেবে ফলের গাছ ও খাবার জন্য বিভিন্ন খাদ্যসামগ্রী ও মৌসুমী ফল দেওয়া হয়।