প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহায়তা তালিকায় আদিতমারীতে একই মোবাইল নম্বর ৫৩জনের নামের পাশে

প্রকাশিত: ৭:৫২ অপরাহ্ণ, মে ১৭, ২০২০

মোঃ মাসুদ রানা রাশেদ, লালমনিরহাট: করোনা ভাইরাস সংকটে প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত নগদ সহায়তার তালিকায় ৫৩জন দুঃস্থ্যর নামের পাশে এক ব্যক্তিরর মোবাইল নম্বর ব্যবহার করা হয়েছে। লালমনিরহাট জেলার আদিতমারী উপজেলার কমলাবাড়ী ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় আজ রবিবার আদিতমারী উপজেলা প্রশাসনসহ লালমনিরহাট জেলায় ব্যাপক তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে।
জানা গেছে, লালমনিরহাট জেলার আদিতমারী উপজেলার কমলাবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইসলামিক শাসণতন্ত্র আন্দোলনের নেতা আলাল উদ্দিন আলাল। এই চেয়ারম্যানের কাছে লোক জনৈক ছমির উদ্দিন। দুঃস্থ্যদের তালিকার ৫৩জনের নামের পাশে ওই ছমির উদ্দিনের মোবাইল নম্বর ব্যবহার করা হয়েছে। ওই তালিকায় মৃত ব্যক্তির নামও রয়েছে বলে জানা গেছে। ওই মৃত ব্যক্তি ছমির উদ্দিনের বাবা বলে জানা গেছে। ওই ইউনিয়রের ৬জন ইউপি সদস্য ইউএনও’র কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করার পর বিষয়টি ধরা পরে ও আলোচনায় আসে।
আদিতমারী উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, আদিতমারী উপজেলার ৮টি ইউনিয়নে ১০হাজার ৫শত ১৬টি পরিবারের তালিকা প্রস্তুত করার দায়িত্ব দেয়া হয় ইউনিয়ন পরিষদকে। ওয়ার্ড কমিটির মাধ্যমে তালিকা চূড়ান্ত করে চেয়ারম্যানের মাধ্যমে উপজেলা পরিষদে জমা দেয়ার কথা। কিন্তু কমলাবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইউপি সদস্যদের কাছে তালিকা জমা নিয়েছেন। কিন্তু চেয়ারম্যান আলাল উদ্দিন আলাল সেই তালিকার নাম বাদ দিয়ে নিজের মতো করে তালিকা করে ইউএনওকে জমা দিয়েছেন। সেই তালিকায় জনৈক ছমির উদ্দিনের মোবাইল নম্বরটি ৫৩জনের নামের পাশে ব্যবহার করা হয়েছে। এমন কি ছমির উদ্দিন তার মৃত বাবার নাম দুঃস্থ্যদের তালিকা দিয়েছে বলে অভিয়োগ উঠেছে। এই চেয়ারম্যান চরমনাই পীরের দল করলেও বর্তমান সরকারের একজন মন্ত্রীর খুব কাছের লোক বলে পরিচিত। বিশাল এই অনিয়ম ধরা পরার পরেও সে থাকছে ধরা ছোঁয়ার বাহিরে।
এ ব্যাপারে কমলাবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলাল উদ্দিন আলাল সাংবাদিকদের বলেন, ইউপি সদস্যদের দেয়া নামের তালিকাই জমা দেয়া হয়েছে। ৫৩জনের নামের পাশে ছমির উদ্দিনের মোবাইল নম্বর কেন দেয়া হয়েছে। এ প্রশ্নের জবাব কৌশলে এড়িয়ে যান।
আদিতমারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মনসুর উদ্দিন দোলন সাংবাদিকদের জানান, প্রায় প্রত্যেকটি ইউনিয়ন থেকেই কিছু ভূলত্রুটি ধরা পড়ছে। সংশোধনের পরই ডাটাবেজে আপলোড করা হচ্ছে। একই মোবাইল নম্বর একাধিক ব্যক্তির নামের পাশে ব্যবহারের সুযোগ নেই। তবে যেসব দূঃস্থ্য লোকের নিজস্ব মোবাইল নাই তাদের নামের তালিকার পাশে মোবাইল নম্বরের ঘরে ৭সংখ্যাটি ১১লিখে পাঠাতে বলা হয়ে ছিল। পরে খোঁজ নিয়ে তাদের সহায়তার অর্থ পৌচ্ছে দেয়া হবে। অথবা তার সম্মতি নিয়ে নিকট আত্মীয়র নম্বরে অর্থ দেয়া যায় কিনা বিষয়টি বিবেচনা করা হচ্ছে।