রাজিব পুরে পাওনা টাকা কেন্দ্র করে ছাত্র লীগ নেতাকে কুপিয়ে মারাত্মক জখম।

প্রকাশিত: ৩:২৭ অপরাহ্ণ, জুন ২, ২০২০

মুরাদুল ইসলাম মুরাদ রাজিবপুর (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধিঃ রাজীবপুর উপজেলায় পাওনা টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে আশরাফুল ইসলাম বাবু (৩৫) নামে এক ব্যক্তি গুরুতর আহত হয়েছেন।বাবু উপজেলার কাচারী গ্রামের মৃত আব্দুল লতিফের পুত্র এবং উপজেলা ছাত্র লীগের সাবেক সভাপতি।

শুক্রবার দিবাগত রাতে থানা মোড়ে এ ঘটনা ঘটে।সংঘর্ষে আরও দুই জন আহত হয়েছে। এ ঘটনায় রাজীবপুর থানায় দুই পক্ষই পাল্টাপাল্টি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে।

আহত আশরাফুল ইসলাম বাবু (৩৫) ও তার ভাই রাজু মিয়া (৪২) এবং মিজানুর রহমান (৪৫) রাজীবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে এবং সেখানেই চিকিৎসা নিয়েছেন তারা।

স্থানীয় সূত্র প্রত্যক্ষদর্শী এবং থানায় বাবু’র বড় ভাই সামছুল আলমের দেওয়া লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে। তাদের বড় ভাই আসাদুজ্জামান রাজুর সাথে থানা মোড়ের ব্যবসায়ী মিন্টু মিয়া’র সাথে ব্যবসায়ীক দেনা পাওনা ছিল। এর আগেও এবিষয়ে দুজনের মধ্যে বাকবিতন্ডা হয়েছে। শুক্রবার রাত নয়টার দিকে আবারও দুজনের মধ্যে কথা-কাটাকাটির সৃষ্টি হয়।

এসময় মিন্টু তার ভাই এবং স্বজনরা রাজু ও বাবু কে মারপিট শুরু করে। এতে রাজুর হাতের আঙ্গুল ভেঙ্গে যায় এবং বাবুর মাথা ফেটে যায় এবং মিন্টুর ভাই মিজানুর রহমানের মাথা ফেটে যায়। পরে স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে রাজীবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে। এ বিষয়ে বাবু ও রাজুর ভাই সামছুল আলম, রাজিয়া সুলতানা রেণু (৪৮), আব্দুস ছালাম (৫৩), আসাদুজ্জামান মিন্টু (৫০), মিজানুর রহমান (৪৫), শফিউর রহমান শফি (৬০), আসাদুজ্জামান আসাদ (৩৫), মোছাঃ রিণা আক্তার (৫৫), মোছাঃ লুৎফুন্নেছা (৫৩) নাম উল্লেখ করে রাজীবপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছে।

একই বিষয়ে থানায় মিন্টু মিয়া’র দেওয়া লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, বাবু তার কাছে মাঝে মধ্যে চাঁদা দাবি করত।শুক্রবার রাতে বাবু ও তার ভাইয়েরা দোকানে গিয়ে আবারও ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে এসময় চাঁদা দিতে অস্বীকার করায় বাবু ও তার ভাইয়েরা মিন্টুকে মারপিট শুরু করে।

এসময় মিন্টুকে উদ্ধার করতে তার দুই ভাই মিজানুর ও দুলাল এগিয়ে আসলে তাদেরকেও মারপিট করা হয় এবং দোকান থেকে টাকা ও মুঠোফোন ছিনতাই করে নিয়ে যায়।বিষয়টি নিয়ে মিন্টু মিয়া বাদী হয়ে আশরাফুল ইসলাম বাবু (৩৫),রাজু মিয়া (৪২), লালমিয়া (৩৭), সামছুল (৪০) ও আরিফ হোসেন (২৫) এর নামে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে।

টাকা ছিনতাই করার অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে আশরাফুল ইসলাম বাবু বলেন,বিষয়টি সম্পূর্ণ মিথ্যা।আমার ভাইয়ের সাথে পাওনা টাকা নিয়ে মিন্টুর কথা-কাটাকাটি হয়েছিল। বিষয়টি মিমাংসা করতে গেলে তারা আমাদের উপর চড়াও হয় এবং মিন্টুর ফুফাতো বোন জেলা পরিষদ সদস্য রাজিয়া সুলতানা রেণু পিছন দিক থেকে আমার মাথায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে।মারধোর করে উল্টো আমাদের রিরুদ্ধেই ছিনতাই মামলা করল। রাজিয়া সুলতানা রেণু জেলা পরিষদের সদস্য হওয়ায় নানা জায়গায় অনৈতিক প্রভাব বিস্তার করে বলেও জানান বাবু।

থানায় লিখিত অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে মিন্টু বলেন, বাবু ও তার ভাইয়েরা দুষ্ট প্রকৃতির লোক। নানা সময় আমার কাছে চাঁদা চাইতো আমি চাঁদা না দেওয়ায় আমার তিন ভাইকে মারপিট করে।

বিষয়টি নিয়ে রাজীবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) গোলাম মোর্শেদ তালুদার বলেন, শুক্রবার রাতে এবং আজ শনিবার দুই পক্ষই লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে। বিষয়টি তদন্ত করে কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

শেয়ার