মুক্তিযুদ্ধ

মুক্তিযুদ্ধের সেক্টর এবং সাব-সেক্টর কমান্ডারদের নামের তালিকা।

প্রকাশিত: ১২:১০ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৩, ২০১৯
ছবি: অনলাইন, যুদ্ধরত মুক্তিযোদ্ধারা

১. চট্টগ্রাম ও পার্বত্য চট্টগ্রাম থেকে ফেনী নদী পর্যন্ত – মেজর জিয়াউর রহমান (এপ্রিল – জুন),
মেজর মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম (জুন-ডিসেম্বর) রিশিমুখ (ক্যাপ্টেন শামসুল ইসলাম);
শ্রীনগর (ক্যাপ্টেন মতিউর রহমান, ক্যাপ্টেন মাহফুজুর রহমান);
মানুঘাট (ক্যাপ্টেন মাহফুজুর রহমান); তাবালছড়ি(সার্জেন্ট আলি হোসেন); এবং দিমাগিরি (আর্মি সার্জেন্ট, নামঃ অজানা).

২. নোয়াখালী জেলা, কুমিল্লা জেলার আখাউড়া-ভৈরব রেললাইন পর্যন্ত এবং ফরিদপুর ও ঢাকার অংশবিশেষ – মেজর খালেদ মোশাররফ (এপ্রিল-সেপ্টেম্বর), মেজর এ.টি.এম. হায়দার(সেপ্টেম্বর-ডিসেম্বর) গঙ্গাসাগর, আখাউড়া এবং কসবা (মাহবুব,লেফটেন্যান্ট ফারুক এবং লেফটেন্যান্ট হুমায়ুন কবির); মন্দাভব (ক্যাপ্টেন গফর); সালদা-নদী (মাহমুদ হাসান); মতিনগর (ল্লেফটেন্যান্ট দিদারুল আলম); নির্ভয়পুর (ক্যাপ্টেন আকবর, লেফটেন্যান্ট মাহবুব); এবং রাজনগর (ক্যাপ্টেন জাফর ইমাম, ক্যাপ্টেন শহীদ,এবং লেফটেন্যান্ট ইমামুজ্জামান

৩.সিলেট জেলার হবিগঞ্জ মহকুমা, কিশোরগঞ্জ মহকুমা, আখাউড়া-ভৈরব রেললাইন থেকে উত্তর-পূর্ব দিকে কুমিল্লা ও ঢাকা জেলার অংশবিশেষ – মেজর কে.এম. শফিউল্লাহ (এপ্রিল-সেপ্টেম্বর), মেজর এ.এন.এম. নুরুজ্জামান (সেপ্টেম্বর-ডিসেম্বর) আশ্রমবাড়ি (ক্যাপ্টেন আজিজ, ক্যাপ্টেন ইজাজ); বাঘাইবাড়ি (ক্যাপ্টেন আজিজ, ক্যাপ্টেন ইজাজ); হাতকাটা (ক্যাপ্টেন মতিউর রহমান); সিমলা (ক্যাপ্টেন মতিন); পঞ্চবাটি (ক্যাপ্টেন নাসিম); মনতালা (ক্যাপ্টেন এম এস এ ভূঁইয়া); বিজয়নগর (ক্যাপ্টেন এম এস এ ভূঁইয়া); কালাচ্ছরা (লেফটেন্যান্ট মজুমদার); কলকলিয়া (লেফটেন্যান্ট গোলাম হেলাল মোর্শেদ); এবং বামুতিয়া (লেফটেন্যান্ট সাঈদ)

৪. সিলেট জেলার পূর্বাঞ্চল এবং খোয়াই-শায়েস্তাগঞ্জ রেললাইন বাদে পূর্ব ও উত্তর দিকে সিলেট-ডাউকি সড়ক পর্যন্ত – মেজর সি.আর. দত্ত জালালপুর (মাহবুবুর রব সাদী); বাড়াপুঞ্জি (ক্যাপ্টেন এ রব); আমলাসিদ (লেফটেন্যান্ট জহির); কুকিতাল (ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট কাদের, ক্যাপ্টেন শরিফুল হক); কৈলাস শহর (লেফটেন্যান্ট ওয়াকিউজ্জামান); এবং কামালপুর (ক্যাপ্টেন এনাম)

৫. সিলেট-ডাউকি সড়ক থেকে সিলেট জেলার সমগ্র উত্তর ও পশ্চিমাঞ্চল – মেজর মীর শওকত আলী মুক্তাপুর (সার্জেন্ট নাজির হোসেন,্মুক্তিযোদ্ধা ফারুক ছিলেন সেকেন্ড ইন কমান্ড); ডাউকি (সার্জেন্ট মেজর বি আর চৌধুরী); শিলা (ক্যাপ্টেন হেলাল); ভোলাগঞ্জ (লেফটেন্যান্ট তাহের উদ্দিন আখঞ্জী); বালাট (সার্জেন্ট গনি, ক্যাপ্টেন সালাউদ্দিন এবং এনামুল হক চৌধুরী);এবং বারাচ্ছড়া (ক্যাপ্টেন মুসলিম উদ্দিন).

৬. সমগ্র রংপুর জেলা এবং দিনাজপুর জেলার ঠাকুরগাঁও মহকুমা – স্কোয়াড্রন লিডার মোহাম্মদ খাদেমুল বাশার ভজনপুর (ক্যাপ্টেন নজরুল, ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট সদরুদ্দিন এবং ক্যাপ্টেন শাহরিয়ার); পাটগ্রাম (প্রথমদিকে ই পি আর এর জুনিয়র কমিশন প্রাপ্ত অফিসারদের মধ্যে ভাগ করে দেয়া হয় এবং পরে ক্যাপ্টেন মতিউর রহমান দায়িত্ব নেন।); সাহেবগঞ্জ (ক্যাপ্টেন নওয়াজেশ উদ্দীন); মোগলহাট (ক্যাপ্টেন দেলোয়ার); এবং চাউলাহাটি (ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট ইকবাল)ন

৭. দিনাজপুর জেলার দক্ষিণাঞ্চল, বগুড়া, রাজশাহী এবং পাবনা জেলা – মেজর নাজমুল হক(এপ্রিল-আগস্ট,দুর্ঘটনায় নিহত), মেজর কাজী নূরুজ্জামান(আগস্ট-ডিসেম্বর) মালন (প্রথমদিকে ই পি আর এর জুনিয়র কমিশন প্রাপ্ত অফিসারদের মধ্যে ভাগ করে দেয়া হয় এবং পরে ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গির দায়িত্ব নেন ); তপন ( মেজর নাজমুল হক); মেহেদিপুর (সুবেদার ইলিয়াস, ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গির ); হামজাপুর (ক্যাপ্টেন ইদ্রিস); আঙিনাবাদ (অজানা মুক্তিযোদ্ধা); শেখপাড়া (ক্যাপ্টেন রশিদ); ঠোকরাবাড়ি (সুবেদার মুয়াজ্জেম); এবং লালগোলা (ক্যাপ্টেন গিয়াসউদ্দিন চৌধুরী).

৮. সমগ্র কুষ্টিয়া ও যশোর জেলা, ফরিদপুরের অধিকাংশ এলাকা এবং দৌলতপুর-সাতক্ষীরা সড়কের উত্তরাংশ – মেজর আবু ওসমান চৌধুরী (এপ্রিল- আগস্ট), মেজর এম.এ. মনজুর (আগস্ট-ডিসেম্বর) বয়ড়া (ক্যাপ্টেন খন্দকার নাজমুল হুদা); হাকিমপুর (ক্যাপ্টেন সফিউল্লাহ); ভোমরা (ক্যাপ্টেন সালাউদ্দিন, ক্যাপ্টেন শাহাবুদ্দিন); লালবাজার (ক্যাপ্টেন এ আর আজম চৌধুরী); বনপুর (ক্যাপ্টেন মোস্তাফিজুর রহমান); বেনাপোল (ক্যাপ্টেন আবদুল হালিম, ক্যাপ্টেন তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী); শিকারপুর (ক্যাপ্টেন তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী, লেফটেন্যান্ট জাহাঙ্গীর)

৯. দৌলতপুর-সাতক্ষীরা সড়ক থেকে খুলনার দক্ষিণাঞ্চল এবং সমগ্র বরিশাল ও পটুয়াখালী জেলা – মেজর এম.এ. জলিল (এপ্রিল-ডিসেম্বর প্রথমার্ধ), মেজর জয়নুল আবেদীন(ডিসেম্বর এর অবশিষ্ট দিন) তাকি হিঞ্জালগঞ্জ শমসেরনগর

১০. কোনো আঞ্চলিক সীমানা নেই। নৌবাহিনীর কমান্ডো দ্বারা গঠিত। শত্রুপক্ষের নৌযান ধ্বংসের জন্য বিভিন্ন সেক্টরে পাঠানো হত ।

১১. কিশোরগঞ্জ মহকুমা বাদে সমগ্র ময়মনসিংহ ও টাঙ্গাইল জেলা এবং নগরবাড়ি-আরিচা থকে ফুলছড়ি-বাহাদুরাবাদ পর্যন্ত যমুনা নদী ও তীর অঞ্চল – মেজর আবু তাহের (আগস্ট-নভেম্বর), ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট এম. হামিদুল্লাহ (নভেম্বর-ডিসেম্বর) মানকারচর (স্কোয়াড্রন লিডার এম হামিদুল্লাহ খান); মাহেন্দ্রগঞ্জ (মেজর আবু তাহের; লেফটেন্যান্ট মান্নান); পুরাখাসিয়া (লেফটেন্যান্ট হাশেম); ধালু (লেফটেন্যান্ট তাহের; লেফটেন্যান্ট কামাল); রংগ্রা (মতিউর রহমান) শিভাবাড়ি (ই পি আর এর জুনিয়র কমিশন প্রাপ্ত অফিসারদের মধ্যে ভাগ করে দেয়া হয় ); বাগমারা (ই পি আর এর জুনিয়র কমিশন প্রাপ্ত অফিসারদের মধ্যে ভাগ করে দেয়া হয় ); এবং মাহেশখোলা (ই পি আর এর জনৈক সদস্য) টাংগাইল সেক্টর – সমগ্র টাংগাইল জেলা ছাড়াও ময়মনসিংহ ও ঢাকা জেলার অংশ – কাদের সিদ্দিকী ।আকাশপথ – বাংলাদেশের সমগ্র আকাশসীমা – গ্রুপ ক্যাপ্টেন এ.কে. খন্দকার।